শরণার্থী কাদের বলা হয়?

শরণার্থী হল এমন একজন ব্যাক্তি যে তাঁর স্বদেশ বা মাতৃভূমি তে নিম্নলিখিত কারণে গুরুতর বিপদের সম্মুখীন অথবা বিপদের আশঙ্কায় রয়েছে। কারণগুলি হলঃ
১) নাগরিকতা
২) বিশেষ সম্প্রদায় ভুক্ত
৩) বিশেষ ধর্ম অবলম্বন করার কারনে
৪) জাতীয় পরিচয়
৫) রাজনৈতিক মতামত
 
শরণার্থী এমন এক ব্যাক্তি যে নিজের দেশেই সাংঘাতিক বিপদগ্রস্ত, নিরাপদ নয় অথবা প্রতিহিংশার ভয় নিজের দেশের আশ্রয় থাকতে অনিচ্ছুক।
জেনিভা কনভেনশন এর শরণার্থী সংজ্ঞা :
সে সমস্ত ব্যক্তি রিফুজি হিসাবে গননা হবে যে : তার জাতি, ধরম, নাগরিকতা, বিশেষ সম্প্রদায়, অথবা রাজনৈতিক বিশ্বাসের কারণে –  নিপীড়নের আশঙ্কার সম্মুধীন ; এবং তার এই আশংকা উত্তম সাক্ষ্য –প্রমানের উপর প্রতিষ্ঠিত ; এবং সেই কারণে সে যে দেশের নাগরিক তার বাইরে অবস্থান করছে , এবং নিজের দেশের নিরপত্তা পাচ্ছে না, অথবা উক্ত  নিপীড়নের আশঙ্কার দরুন নিজের দেশের  নিরপত্তা ব্যবস্থার উপর আস্থাহীন ; (অথবা তার কোনো নাগরিকতা না থাকার কারণে) এবং পূর্বে যে দেশে স্থায়ীভাবে বসবাস করছিল , সেই দেশে ফিরতে পারছে না, অথবা উক্ত নিপীড়নের আশংকার দরুন সেই দেশে ফিরে যেতে অনিচ্ছুক |

 আমি একজন শরণার্থী?

শরণার্থী হিসেবে নির্দেশিত হওয়ার জন্য জেনিভা কনভেনশন কৃত শরণার্থী সংজ্ঞার সাহায্য নেওয়া হয়।যদি আপনি জেনিভা কনভেনশন গ্রিহিত নিম্নলিখিত তিনটি শর্ত পুরন করেন তাহলে আপনাকে শরণার্থী হিসেবে গ্রহণ করা হবে।

 

– জেনিভা কনভেনশন এ বর্ণিত ৫ টি কারনের যে কোন একটি কারনে আপনি নিজের দেশে নির্যাতিত ;
– আপনি নিজের দেশের আশ্রয় পাচ্ছেন না বা চাইছেন না ; এবং
– যদি আপনি আপনার দেশের বাইরে থাকেন (আপনি এই শর্তটি পুরন করছেন কারন আপনি নিজের দেশ ছেরে ফ্রান্সে আছেন

 

এই তিনটি শর্ত আপনার ক্ষেত্রে গ্রাহ্য না হলে আপনাকে শরণার্থী হিসেবে গণ্য করা হবেনা। কোন ক্ষেত্রে আপনার দ্বিধা অথবা সন্দেহ থাকলে আপনি কোন সংগঠন এর সাহায্য নিতে পারেন। যেমন “লা সিমাডা” বিনামুেল্য এই পরিষেবা দিয়ে থাকে, ফ্রান্স এর বিভিন্ন শহরে এই সংস্থার সহায়তা পাওয়া যাবে।
ফ্রান্সের বিভিন্ন সহরে ‘সিমদের  ‘ দপ্তর

যে মানুষ টি আশ্রয় চাইছেন, সে কি ধরনের আশ্রয় চান তা বাছাই করতে পারবেন না। এ শুধু মাত্র অফপরা এবং জাতীয় আদালত [CNDA] প্রথমে জিনেভা কনভেনশনের এবং কানস্টিচিউশ্নের আশ্রয়ে সম্বন্ধী ধরা  পরে সহায়ক আশ্রয়ের  শর্তে আপনার  আবেদনপত্র পরীক্ষা করবে এবং  সিধান্ত নিবে |

১। শরণার্থী হিসেবে কে বিবেচিত হবেন?

[1] শরণার্থী হিসেবে নিম্নলিখিত অবস্থায়ে থাকা মানুষেরা গণ্য হবে

যে মানুষ তার নিজের দেশে হিংসার শিকার এবং যে নিজের দেশ এর আশ্রয় নিতে অক্ষম বা অন্নিচ্ছুক।

যদি মানুষটির প্রতি হিংসার কারনের মধ্যে কোনোটি হয়ে :

১- তার জাতি, ২- ধরম, ৩- নাগরিকতা, ৪- বিশেষ সম্প্রদায়, অথবা ৫- রাজনৈতিক বিশ্বাসের কারণে | এইটিকে বলা হয় কনভেনশনাল আশ্রয় |

[2] যে মানুষটি নিজের দেশে হিংসার শিকার, কারন সে স্বাধীনতার জন্য পদক্ষেপ নিয়েছে  যেমন, একজন শিল্পী, সাংবাদিক, বুদ্ধিজিবি, যারা গনতন্ত্রের প্রতি দায়িত্ববদ্ধ এবং সেই কারনে নিজের দেশে সন্ত্রস্ত | সে ক্ষেত্রে, তারা সাংবিধানিক আশ্রয় এর আন্তরভুক্ত হবে।

২|  সহায়ক সুরক্ষা

২০০৩ এর জারি হওয়া একটি আইন অনুযায়ী, একটি নতুন ধরণের সুরক্ষা দেওয়া হয় ফ্রান্স : যার নাম সহায়ক সুরক্ষা|

এই সহায়ক সুরক্ষার সুবিধা গ্রাহ্য করা হয় তাদের জন্য যারা  শরণার্থী মর্যাদা পাওয়ার জন্য বিবেচিত হয় না কিন্তু তাদের নিজেদের দেশে নিম্নোলিখিত  করেন তারা সুরক্ষিত বোধ করে না:

১-  মৃত্যু দণ্ড বা ফাঁসি (কোন নির্দিষ্ট রাজনৈতিক প্রসঙ্গে)

২- অত্যাচার, অমানবিক বা অধঃপতিত আচরণ অথবা শাস্তি।

৩- অসামরিক হওয়া সত্ত্বেও প্রাণপাত এর পৃথক হুমকি কোন হিংস্রতার কারণে জেটি যেকোনো মানুষকে প্রভাবিত করতে পারে তার বেক্তিগত অবস্থা নিরপেক্ষ করে, যার সূত্র হতে পারে অন্তঃস্থ বা আন্তর্জাতিক সশস্ত্র সংঘাত।

 

আশ্রয় প্রার্থী হিসাবে আপনি নিম্নলিখিত সুবিধা-ভোগ করবেন. স্বাস্থ বিমা সুবিধা , বাসার সুবিধা, আর্থিক সাহায়েতা, পোস্ট হিসাবের সুবিধা এবং হ্রাসকৃত মূল্যে পরিবহন কার্ডের সুবিধা|

যদি আপনি শরণার্থী সংজ্ঞা পরিতুষ্ট করেন  এবং ফ্রান্সে রাজনৈতিক আশ্রয়ের আবেদন করতে চান তবে এই  প্রয়োজনীয় তথ্য জন্ন  “আমার আশ্রয় প্রক্রিয়া আমি শুরু করেন নি” দেখুন|

 “আমি আমার আশ্রয় নেয়ার প্রক্রিয়া এখনও শুরু করিনি”

শরণার্থী কার্ড ছাড়াও  ফ্রান্সে বসবাসের পারমিট পাওয়ার অন্যান্য সুযোগ আছে. এই ওয়েবসাইট কেবল মাত্র ফ্রান্সের শরণার্থীদের তথ্য প্রদান করার লক্ষ্যে কাজ করে।  তবে  আপনি নিয়মিতকরণ-এর সম্ভাবনাগুলি সম্পর্কে কিছু সাধারণ তথ্য এখানে পেতে পারেন | 

তথাপি আপনার অবস্থা থেকে অভিযোজিত, ফ্রান্সে নিয়মিতকরণ-এর সুযোগ খুজার প্রযজেনে আমরা আপনাকে “লা সিমাড” থেকে যোগাযগ  করবার উপদেশ দেব।

ফ্রান্সে “ লা সীমাদ “-এর ঠিকানা